বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আমিনুল ইসলাম যেভাবে হয়ে উঠলেন একজন মানবিক নেতা

প্রকাশিত : ৮:২২ পূর্বাহ্ন বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

 

 

আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম আমিন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক। সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার গণ মানুষের প্রাণের নেতা। দেশের আওয়ামী রাজনীতির হাজার হাজার কর্মী গড়ার কারিগরও। দেশের বিগত যেকোন কঠিন দু:সময় ও সংকটময় মুহুর্তে সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার আওয়ামী পরিবারের সদস্যদের পাশে যেমন ছিলেন, ঠিক তেমনি অসহায়, খেটে খাওয়া দিনমজুর, শ্রমজীবি ও সাধারণ মানুষের পাশেও ছিলেন তিনি। উনার একটি বড়গুণ হচ্ছে যেকোন কঠিন পরিস্থিতিতেও রাত-বিরেতে যেকোন সাধারণ মানুষের ফোন রিসিভ করা এবং ছোট-বড় সব মানুষকে অনায়াসে বুকে টেনে নেয়া। এই দুটি গুনের কথা সাতকানিয়া-লোহাগাড়াবাসীর মুখে মুখে। আর এ কারণেই তিনি ধীরে ধীরে হয়ে উঠেছেন সাতকানিয়া-লোহাগাড়াবাসীর প্রাণের নেতা, জনগণের নেতা এবং আশা-ভরসার ঠিকানা হিসেবে। অথচ তিনি কোন এমপি নন, মন্ত্রী নন কিংবা সরকারের বেতনভোগী কোন পদবীধারী ব্যাক্তিও নন। তারপরও তিনি আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন এসব পদে না থাকলেও শুধু মানবিক মন থাকলে মানুষের সেবা করা যায়।

এদিকে, দেশে যখন করোনা সংকট ভয়াবহতার দিকে যাচ্ছিল তখন সরকার তা প্রতিরোধে দেশের সকল সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্টানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে লোকজনকে নিজ নিজ ঘরেই অবস্থান করতে নির্দেশ দেন। এক পর্যায়ে সড়ক-মহাসড়কে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় সরকার। ফলে, কর্মহীন হয়ে খাদ্য সংকটে পড়ে যান শ্রমজীবি, দিনমজুর ও নিম্ন আয়ের মানুষগুলো। এসব কর্মহীন মানুষগুলো খেয়ে না খেয়ে, অনাহারে-অর্থাহারে যখন নিজ ঘরে আটকে পড়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছিলেন। ঠিক তখনই খবর পেয়ে এসব অসহায় কর্মহীন মানুষদের পাশে এসে দাঁড়ালেন তাদের প্রাণের নেতা আমিনুল ইসলাম আমিন। ব্যাক্তিগত আর্থিক সহায়তায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে পাঠালেন সুরক্ষা সামগ্রী যেমন ৫০০০টি মাক্স, ৩০০০টি হ্যান্ডস্যানিটাইজার, ৩০০০টি ডেটল সাবান ও ২০০০টি হ্যান্ড গ্ল্যাভস। দলীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে এসব সুরক্ষা সামগ্রীগুলো যথাযথভাবে বিতরণ করা হয়েছে। এরপর পাঠালেন খাদ্য সামগ্রী। ৫টি ধাপে ২০০০ (দুই হাজার) প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার কর্মহীন দরিদ্র মানুষের মাঝে। যেগুলো দুই উপজেলার ২৬টি ইউনিয়নের হতদরিদ্রদের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার ও দলীয় নেতাকর্মীরা। এসব খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেটে ছিল ১০ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি মসুর ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তৈল, ১ কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি লবন ও ১টি সাবান। দেশের করোনা সংকটময় মুহুর্তে নিজ ঘরে আটকে পড়া কর্মহীন দরিদ্র মানুষেরা আমিনুল ইসলাম আমিনের পাঠানো এসব খাদ্যসামগ্রী পেয়ে আনন্দে আত্নহারা হয়ে পড়েন। আমিনুল ইসলামের খাদ্যসামগ্রী পেয়ে লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ৮৩ বছর বয়সী হতদরিদ্র মো: ইসমাঈল তাঁর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, এই করোনাত আরাঁর নেতা আমিনুল ইসলাম ভাই জননেতাত্তুন মানবিক নেতা অঁইগিয়ে। আরার মানবিক নেতা আমিন ভাই।
এদিকে, আমিনুল ইসলামের ব্যাক্তিগত সহকারী মিরান হোসেন মিজান জানান, ত্রাণ সহায়তা এখনো অব্যাহত আছে। না খেয়ে আছে এমন খবর পাওয়ার সাথে সাথেই নেতার নির্দেশে খাদ্য সামগ্রী গোপনে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছি। ##

লেখকঃ সাংবাদিক একে আজাদ

প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ।

আরো পড়ুন