রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

করোনা:জাতীয় কমিটির প্রধান তিনি, জানেন না কোনো সিদ্ধান্ত!

প্রকাশিত : ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

করোনায় সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও থমকে আছে। দিনে দিনে বাড়ছে আক্রান্ত আর মৃত্যুর সংখ্যা। তাই করোনা প্রতিরোধে জাতীয় কমিটি করেছে সরকার। এই কমিটির চেয়ারম্যান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তবে তার দাবি, জাতীয় কমিটিতে যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে তিনি তার কিছুই জানেন না।

সোমবার এক অনুষ্ঠানে অনেকটা আক্ষেপের সুরে মন্ত্রী বলেন, ‘সাংবাদিকরা আমার কাছে এসব বিষয় জানতে চান। কিন্তু সদুত্তর দিতে পারি না।’

মহাখালীর বিসিপিএস ভবনের সম্মেলন কক্ষে (আইপিএস ভবনের পাশে) সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্যসংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত জরুরি এক সভায় মন্ত্রী বলেন, ‘করোনা প্রতিরোধে একটা জাতীয় কমিটি করা হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে আমাকে এ কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। কিন্তু এ জাতীয় কমিটিতে যে সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হচ্ছে সেগুলোর কিছুই আমার জানা নেই।’

সরকারি ছুটি চলাকালে ৫ এপ্রিল হঠাৎ করেই পোশাক কারখানাগুলো খুলে দেওয়া হয়। ঢাকার বাইরে থেকে মানুষের ঢল নামে রাজধানী পানে। গণপরিবহন না থাকায় মিছিলের মতো হাঁটতে হাঁটতে ঢাকায় আসেন পোশাক শ্রমিকরা। এ বিষয়ে শনিবার অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে জানতে চান সাংবাদিকরা। কেন এমনটা করা হলো? এভাবে যদি মানুষ দলবেঁধে চলতে থাকে, তাহলে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির ঝুঁকি কি বাড়ে না? পোশাক কারখানার মালিকরা কি এনিয়ে সরকারের সঙ্গে কথা বলেনি? সাংবাদিকদের এসব প্রশ্নের কোনো সন্তুষজনক উত্তর স্বাস্থ্যমন্ত্রী দিতে পারেননি। বরং নিজের অসহায়ত্বই যেন প্রকাশ করেছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘কখন ফ্যাক্টরি খোলা হবে নাকি হবে না, মসজিদে নামাজ কীভাবে হবে সে বিষয়গুলো আমাদের জানা নেই। আমরা জানি না কখন রাস্তা খুলে দেবে নাকি বন্ধ করবে। আমরা স্বাস্থ্য বিষয় বাদে কোনো ধরনের বিষয় আমাদের সঙ্গে আলোচনা হয়নি।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমি সাংবাদিকদের প্রশ্নের সম্মুখিন হচ্ছি। তাদেরকে সদুত্তর দিতে পারি না। শুধু দেশে না বিদেশ থেকেও অনেক সাংবাদিকরা আমার কাছে জানতে চায়। আমি এ কমিটির হেড হয়ে কেন এ বিষয় জানি না সে দোষ দেওয়া হয়।‘

তিনি বলেন, `আমি সচিব সাহেবকে বলেছি এ বিষয়ে আলোচনা করে আমাদের কাছে থেকে সিদ্ধান্ত না নিলেও অন্তত পরামর্শ করতে পারেন। তাহলে আমরা আমাদের মতামতটা দিতে পারি।’ঢাকাটাইমস

আরো পড়ুন