শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২

লোহাগাড়ায় পরিবার কল্যাণ সেবা, প্রচার সপ্তাহ ও মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত : ৩:০৭ অপরাহ্ন শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা প্রহণ করি; বাল্যবিয়ে এবং অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ রোধ করি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উপলক্ষে মা সমাবেশ, স্থায়ী ও দীর্ঘ মেয়াদী পদ্ধতির ক্যাম্প পরিচালনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলা পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকার পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (লজিস্টিক) মুহাম্মদ তছলিম উদ্দিন।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ কাজী লামিয়া শারমিনের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক সুব্রত চৌধুরী, পরিবার পরিকল্পনা চট্টগ্রাম রিজিওনাল কনসালট্যান্ট ও সহকারী পরিচালক ডা. ছেহেলী নার্গিস, বাকলিয়া মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডাঃ প্রতিমা রাণী ত্রিপুরা, মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুপণা দে, সাতকানিয়া উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মিনহাজুল আবসার।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, মা-শিশুর জীবনের ঝুঁকি এড়াতে প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারির বিষয়ে প্রচার-প্রচারণা অব্যাহত রাখতে হবে। স্বাস্থ্যসেবার অগ্রযাত্রায় সবাইকে শামিল হতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ গড়তে হলে সুস্থ  মা ও সন্তান অত্যন্ত জরুরি। কোভিডকালীন মাস্ক ব্যবহার, নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা, সামাজিক অনুষ্ঠান পরিহার ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে সবাইকে পরামর্শ দেয়া হয়। বক্তারা আরও বলেছেন,
সরকার মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়নে বিভিন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেকশই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) আলোকে ২০৪১ সালের মধ্যে গর্ভসংক্রান্ত প্রসবকালে মা ও শিশু মৃত্যু হার শূন্যতে নামিয়ে আনতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। স্বাস্হ্য বিভাগে বর্তমান সরকার অামূল পরিবর্তন এনেছেন। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে করতে কোন শ্রেনীকে বাদ দিয়ে মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়ন করা যাবে না। এতে সমাজের সকল শ্রেনীকে অংশগ্রহন করতে হবে বলেও বক্তারা বলেন।

আলোচনা সভা শেষে সেবা ও প্রচার সপ্তাহের উপস্থিত কিশোরীদের মাঝে বিনামূল্যে স্যানিটারী ন্যাপকিন, ঔষধ ও মাস্ক বিতরণ করা হয়।

 

আরো পড়ুন