বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শিক্ষার্থীদের শিক্ষায় গুরুত্ব প্রদানের জন্য অভিভাবকদেরও অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে

প্রকাশিত : ৮:৫৬ অপরাহ্ন বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

রায়হান সিকদারঃ

শিক্ষার্থীদের শিক্ষায় গুরুত্ব প্রদানের জন্য অভিভাবকদেরও অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রতিটি শিক্ষার্থীর মা যদি তাদের সন্তানের উপর সচেতন হন তাহলে ওই সন্তানের অবশ্যই ভালো রেজাল্ট হবে বলে মন্তব্যে করেছেন সুখছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য,সুখছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি, লোহাগাড়া জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক, সমাজসেবক ও দানশীল ব্যক্তিত্ব ডাঃ রিটন দাশ।

২৪ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকালে সুখছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিদ্যালয়ের হল রুমে আয়োজিত শিক্ষার মান উন্নয়ন ও শিক্ষার্থীদের পাঠদানের অগ্রগতির জন্য অভিভাবকদের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো তুলে ধরেছেন।

ডাঃ রিটন দাশ বলেন, এ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মান উন্নয়নে অভিভাবকদের আরো সচেতন হতে হবে। মাঝে মাঝে বিদ্যালয়ে এসে সন্তানের খোঁজ-খবর নিলে তারা লেখাপড়ায় ফাঁকি দিতে পারবে না। প্রতিটি শিক্ষার্থীর দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে। যে শিক্ষার্থী যে বিষয়ে দূর্বল তাকে অতিরিক্ত পাঠদানের মাধ্যমে অনুশিলন করতে হবে। এতে বিদ্যালয়ের সুনাম ও মান বৃদ্ধি পাবে। এজন্য শিক্ষক-অভিভাবকদের সমন্বয়ে ৩ মাস অন্তর অন্তর এ ধরণের অভিভাবক সমাবেশ করতে হবে। বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান আরও উন্নত হবে। তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ফাকি দেওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে ফেইসবুক, ইন্টারনেট, ইউটিউব, ইত্যাদি। তারা এ দিকে আকৃষ্ট হয়ে পড়ালেখায় অমনুযোগী হয়ে পড়ছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলী জিন্নাহ`র সভাপতিত্বে অভিভাবক সমাবেশে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক অনুপ কুমার দাশ,সিনিয়র শিক্ষক বাবু কার্তিক চন্দ্র দাশ,অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মাস্টার মোবারক আলী, বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, মোহাম্মদ আমিনুল হক, শেলী পাল, মনিকা দাশ, মোহাম্মদ রফিক, মোহাম্মদ আব্দুল কাদের, মোহাম্মদ আতিকুল হক, মোহাম্মদ পারভেজ, অনামিকা দে, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামসহ বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবক-অভিভাবিকাবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন

 

 

আরো পড়ুন