শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে ডাকাতি চলছেই

প্রকাশিত : ৯:৩৬ অপরাহ্ন শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

মো. আবুল বাশার নয়ন

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত ঘেষে অস্ত্রধারী ডাকাতদলের আনাগুনা অব্যাহত রয়েছে। দুই দিনের ব্যবধানে আবারো দুটি দোকান ও তিন বসতবাড়ি লুট করেছে ১০-১২ জনের সংঘবদ্ধ ডাকাত দল। ডাকাতের প্রহারে আহত হয়েছে সুমি আক্তার নামে নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রী।

রবিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের নন্নাকাটা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার দিবাগত রাতে মুখোশ পরিহিত ১০-১২ জনের সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দল নন্নাকাটা গ্রামের বাসিন্দা সলিমুল্লাহর দোকানে হানা দিয়ে নগদ ৬০ হাজার টাকা এবং মনির আহমদ, মীর কাশেম, খুইল্লা মিয়ার বসতবাড়ি থেকে মোবাইল সেট ও মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। এসময় খুইল্লা মিয়ার মেয়ে নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রী সুমি আক্তার চিৎকার করলে ডাকাতদল তাকে মারধর করে আহত করে। পরে ডাকাত দল ৩-৪ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। সোমবার ভোরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে নাইক্ষ্যংছড়ি জোন সদরের বিজিবি ও থানা পুলিশ।

ডাকাতির সত্যতা নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: আলমগীর শেখ বলেন, উখিয়া, পাতাবাড়িসহ বহিরাগত এলাকার কিছু লোক এই অপরাধের সাথে জড়িত। ইতিপূর্বে এই সিন্ডিকেটকে আটক করা হয়েছিল। সম্প্রতি জামিনে এসে তারা আবারো ডাকাতি করছে। তবে তাদের আটকে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত এক বছর যাবত সোনাইছড়ি-নিকুছড়ি ও চাকঢালা সীমানা ঘেষে ১০-১২ জনের অস্ত্রধারী ডাকাতদল লুটপাট চালাচ্ছে। ওই ডাকাত দলের আতঙ্কে চাক সম্প্রদায়ের বেশ কয়েকটি পরিবার গ্রাম ছাড়া হয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। চলতি বছর ৮জুন জারুলিয়াছড়িতে ডাকাতদল তিন বসতবাড়ি ও দুই দোকান লুট, ১০ মার্চ পাইয়াঝিরি তংচঙ্গ্যা পাড়ায় ডাকাতি, ১৫ ফেব্রুয়ারি নাইক্ষ্যংছড়ি সোনাইছড়ি সড়কের জুমখোলা এলাকায় গাড়ি থামিয়ে গণডাকাতি, ১২জুন বৈদ্যছড়ায় ডাকাতি, গত বছর ২৬ অক্টোবর ভগবানটিলায় স্বর্ণ কণ্যা জ উ প্রুসহ পথচারীদের গণডাকাতি এবং সর্বশেষ ৭ সেপ্টেম্বর চাকঢালা গয়ালকাটায় ডাকাত দল হানা দিয়ে লুটপাট করে। এসময় তাদের হামলায় অন্তত দুই জনপ্রতিনিধিসহ অন্ত ১৫জন আহত হয়েছে

সূত্র: পূর্ব সীমান্ত

আরো পড়ুন