শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২

পদুয়ায় দেবরের দায়ের কোপে ভাবির হাতের ২টি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন ,সেই দেবর আটক

প্রকাশিত : ১:২৭ অপরাহ্ন শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

 

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডস্থ হানিফার পাড়ায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে দেবরের হামলায় আপন ভাবী গুরুত্বর আহত হয়েছে। দায়ের কোপে ডান হাতের বৃদ্ধা আঙ্গল ও শাহাদত আঙ্গুল (২টি) আলাদা হয়ে গেছে।

২ জুলাই (শনিবার) দুপুর ২টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

আহত মহিলার নাম নুর আয়শা বেগম(৪৬)। সে ওই এলাকার মুুহাম্মদ আবদুস শুক্কুরের স্ত্রী।

এ ঘটনার পর পরই লোহাগাড়া থানার ওসি মুহাম্মদ আতিকুর রহমানের নির্দেশে এসআই মামোনুর রশিদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম সেই হামলাকারী মুহাম্মদ হোসেন(৩৫) কে আটক করে থানার হেফাজতে নিয়ে আসে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, আবদুস শুক্কুর এবং মুহাম্মদ হোসেন আপন ভাই। তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধকে কেন্দ্র করে অতর্কিতভাবে আবদুস শুক্কুরের স্ত্রী নুর আয়শাকে দায়ের কোপ মারলে সে রক্তাক্ত জখম হয়। ওই সময় দেবর মোহাম্মদ হোসেনের দায়ের কোপে আপন ভাবীর দুটি আঙ্গুল কেটে আলাদা হয়ে,গেছে।

স্থানীয়রা দ্রুত উদ্ধার করে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকাজনক দেখে তাকে চমেকে প্রেরণ করেছেন।

আহতের স্বামী আবদুস শুক্কুর জানান, অতর্কিতভাবে আমার আপন ছোট ভাই আমার স্ত্রী নুর আয়শাকে দায়ের কোপ মেরে ২টি আঙ্গুল কেটে হাত থেকে আলাদা করে ফেলেছে। তিনি সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের জোর দাবী জানান।

লোহাগাড়া থানার ওসি মুহাম্মদ আতিকুর রহমান জানান,এ ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। একজন মহিলাকে এভাবে মারধর করা জগন্যতম অন্যায়। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।ঘটনার পর পরই থানার এসআই মামোনুর রশিদকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। এ ঘটনার মুল আসামী মোহাম্মদ হোসেনকে আটক করা হয়েছে। অন্যায়কারীরা যত বড়ই শক্তিশালী হোকনা কেন কোন ছাড় নেই বলেও তিনি জানান।

আরো পড়ুন