বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার চরতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠার কথা

প্রকাশিত : ৮:৪১ পূর্বাহ্ন বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

অধ্যাপক পার্থ সারথী চৌধুরী
১৯৬৬ ইংরেজী সাল । বঙ্গবন্ধু ঘোষিত ৬ দফা নিয়ে উত্তাল বাংলা তথা সমগ্র পাকিস্তান।দেশব্যাপী রব উঠেছে শেখ সাহেবের নেতৃত্বে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তি চায় বাঙালি।এ মুক্তি অর্জন করতে হলে তৃণমূল পর্যায়ে জগণকে সুসংগঠিত করতে হবে।সুসংগঠিত করার জন্য প্রয়োজন সংগঠন।ইউনিয়ন পর্যায়ে সংগঠন করার তাগিদ অনুভব করলেন উর্ধতন নেতৃবৃন্দ।সেই তাগিদে বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আবু সালেহ নিজ থানা সাতকানিয়া সহ বিভিন্ন থানায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার কাজে আত্মনিয়োগ করলেন।
তিনি ১৯৬৬ ইং সনে আমার প্রয়াত পিতা ডাঃ সুখেন্দু বিকাশ চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করলেন । রাত্রি যাপন করলেন মাষ্টার আবদুল মাবদের বাড়ীতে।শেখ সাহেবের কর্মী পরিচয় দেওয়ায় মাবুদ চাচার মা উনাকে যত্ন করে নিজ হাতে রান্না করে খাওয়ালেন পরম মমতায় ।আমার বাবার সাথে দেখা করে আহ্বান করলেন আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করার জন্য এবং দলের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য।বাবা উনার কাছে সময় চাইলেন এবং আরেকদিন আসতে বললেন ।
বাবা ইন্ডিয়া থেকে সমন্বিত ডাক্তারী ও কবিরাজী পাস করে এসেছেন বৎসর তিনেক হয় ।ভারতে বাবা কলিকাতা জে বি এ এ গভর্ণমেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র হাউস সার্জন হিসেবে কর্মরত ছিলেন।অধ্যয়নকালীন সময়ে ঐ মেডিকেল কলেজ ছাত্রসংসদের জি এস ছিলেন। আমার পিতামহ কবিরাজ প্রসন্ন কুমার চৌধুরী টেলিগ্রাম পাঠিয়ে তাঁকে দেশে ডেকে আনলেন এলাকার সুবিধাবঞ্চিত,অবহেলিত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সেবা করার জন্য।পিতার ডাকে সাড়া দিয়ে শহুরে বিলাসবহুল জীবন পরিত্যাগ করে গ্রামীণ জনপদের কল্যাণ সাধনে ব্রতী হলেন। বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ডাকে অনুপ্রাণিত হয়ে আবু সালেহ চাচার আহ্বানে সাড়া দিয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করলেন চরতী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠার।
পরবর্তী একটা তারিখ ধার্য করে আমাদের বাড়ীর বৈঠকখানায় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং এলাকার তরুণদের একটা মিটিং ডাকলেন।আবু সালেহ চাচাকে আমণ্ত্রণ জানালেন ঐ মিটিং এ ।তিনি কাঞ্চনার ইসহাক সাহেবকে নিয়ে হাজির হলেন ঐ মিটিং এ।আমার বাবাকে সভাপতি এবং মাষ্টার আবদুল মাবুদকে সাধারণ সম্পাদক করে চরতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করে ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা হল।মরহুম বজল আহমদ চৌধুরী চেয়ারম্যান,মরহুম মনজুর আহমদ তালুকদার,স্বর্গীয় ডাঃ অতূল চন্দ্র দাশগুপ্ত,চৌধুরী মোঃ আকরাম খান,ফকির আহমদ চৌধুরী,মরহুম আবুল হোসেন তালুকদার মেম্বার,নুর হোসেন চৌধুরী চেয়ারম্যান,মরহুম আবদুল কাদির ছনুয়া,এয়াকুব হোসেন মেম্বার(বর্তমানে জামাত),মরহুম আবদুল মোনায়েম প্রকাশ কালু মাষ্টার,মরহুম নজির আহমদ(হুক্কা বাড়ী),মরহুম এনায়েত আলী তালুকদার মেম্বার,প্রয়াত কৃষ্ঞ সাধন ধর মেম্বার,আবদুল মাবুদ (পানিচরতী),আবদুল
মাবুদ( দক্ষিণ চরতী),মরহুম মহব্বত আলী তালুকদার,জনাব আতিকুর রহমান,মাষ্টার নজির আহমদ,মাষ্টার মঞ্জুরুল হক চৌধুরী,মাষ্টার আবু সাইদ,মরহুম রাহমত আলী তালুকদার,হাজী নুরুচ্ছফা,পুলিন বিহারী দাশ লালূ,মরহুম আবদুস শুক্কুর ডিলার,মরহুম কমরুল ইসলাম চৌধুরী ,মরহুম উকিল আহমদ সিরাজী সহ অনেকে এই গঠন প্রক্রিয়ায় জড়িত ছিলেন। লেখক: সাধারণ সম্পাদক চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা আওয়ামী যুবলীগ

আরো পড়ুন