রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বড়হাতিয়ায় এক অসহায় মহিলার বসতঘর পুড়ে ছাই, খোলা আকাশে মানবেতর জীবন

প্রকাশিত : ৩:৪৪ পূর্বাহ্ন রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

 

লোহাগাড়া প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডস্হ জঙ্গলী পীর পাড়া অগ্নিকান্ডে এক অসহায় মহিলার বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ক্ষতিগ্রস্ত মহিলার নাম লায়লা বেগম(। সে ওই এলাকার অলী আহমদের স্ত্রী।

গতকাল বিকেল ৫টার দিকে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে।

স্হানীয় সুত্রে জানা গেছে, লায়লা বেগমের ছোট্ট একটি টিন-বেড়ার বাড়ি। সে প্রতিদিনের ন্যায় সকাল ১২টার দিকে জীবিকার তাগিতে পাহাড়ে লাকড়ি কাটতে চলে যায়। একমাত্র মেয়েকে অতি কষ্টে বিয়ে দেয়। স্বামীও অসুস্হ। কোন কিছু কাজ করতে পারেনা। একমাত্র সম্বল ছোট্ট বাড়িটি। উল্লেখিত সময়ে তার বসতঘরে আগুন লাগে। আগুনের লেলিহান শিখায় দাউ দাউ জ্বলতে থাকে। স্হানীয়রা খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে আসলে তার ঘর রক্ষা হয়নি। মুহুর্তের মধ্যে তার ঘরটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।এসময় তার ঘরে থাকা ৬টি কম্বল, মানুষের কাছে হাত পেতে ভিক্ষা করা ২০ কেজি চাউল, প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সে এখন খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছেন বলে জানা গেছে।

ক্ষতিগ্রস্তের অভিযোগ তারটি পুর্ব শত্রুতার জের ধরে আগুন লাগিয়ে পুড়ে দিয়েছে।
তবে,স্হানীয়দের অভিযোগ রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত লায়লা বেগম জানান, আমার সবকিছু শেষ হয়ে গেছে। আমার একমাত্র বাড়িটি আমার সম্বল ছিল। আমার কেউ নেই। আমি পাহাড়ে গিয়ে কিছু লাকড়ি কেটে সেগুলো বিক্রী করে সংসার চালায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বড়হাতিয়া ইউপির চেয়ারম্যান বাবু বিজয় কুমার বড়ুয়া। তিনি তাৎক্ষণিক ক্ষতিগ্রস্হ মহিলাকে কম্বল ও নগদ অর্থ প্রদান করেন।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুহাম্মদ আহসান হাবীব জিতু জানান,এ বিষয়ে স্হানীয় চেয়ারম্যান সাহেব আমাকে অবগত করেন। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগীতা প্রদানের আশ্বাস দেন।

এলাকার বিত্তশালীরা ক্ষতিগ্রস্ত লায়লা বেগমের পরিবারের পাশে এগিয়ে আসার আহবান।

আরো পড়ুন