বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

দেশবাংলায় খবর প্রকাশ,অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে এসিল্যান্ডের অভিযান,ড্রেজার মেশিন ধ্বংস ও বালু জব্দ

প্রকাশিত : ১০:৪৬ অপরাহ্ন বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

 

রায়হান সিকদারঃ

পুটিবিলায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে হুমকিতে ফসলি জমি এই শিরোনামে গতকাল দেশবাংলায় খবর প্রকাশিত হয়। খবর প্রকাশের পর চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের গৌড়স্হান নয়া বাজারের দক্ষিণ পার্শ্বে সড়াইয়া খাল এবং পার্শ্বের জমি থেকে সেলু ইঞ্জিন (ড্রেজার) দিয়ে বালু উত্তোলনের দায়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।এসময় ৫৫হাজার ঘনফুট বালু জব্দ এবং ড্রেজার মেশিন পুড়িয়ে দেয়া হয়।

৩০ ডিসেম্বর সকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতে এ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মোঃ মাসুদ রানা।

জানা গেছে,উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত মেম্বার মুহাম্মদ ইকবালের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছিল। তার ফলে পাশের ফসলী জমিন ভেঙ্গে গর্তে চলে যাচ্ছে।এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ে ওই গ্রামের কৃষক মুহাম্মদ হাসান,আবুল কাসেম লিখিত অভিযোগ করেন। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদ রানা সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় ৫৫হাজার ঘনফুট বালু জব্দ,ড্রেজার মেশিন পুড়িয়ে দিয়ে ধ্বংস এবং স্পটে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়।

অভিযানকালে লোহাগাড়া থানান এসআই মোজাম্মেল হক, লোহাগাড়া উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার শিশির স্বপন চাকমা,চুনতি ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শরফুদ্দিন খাঁন সাদি,উপজেলা ভূমি অফিসের নয়ন দাশসহ অন্যান্যরা।

 

 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মোঃ মাসুদ,রানা জানান, পুটিবিলার ৮নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত ইকবাল মেম্বার সড়াইয়া খাল থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন করছিল। অনেকদিন ধরে তিনি বালু তুলে বিক্রি করে আসছে। এলাকার কৃষক লিখিত অভিযোগ করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের নির্দেশে উক্ত স্পটে অভিযান চালিয়ে ৫৫হাজার ঘনফুট বালু জব্দ জব্দ,ড্রেজার মেশিন পুড়িয়ে ধ্বংস এবং লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়। অবৈধ বালুখেকো নব নির্বাচিত মেম্বার মুহাম্মদ ইকবালের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্হা নেওয়া হবে।অভিযুক্ত নব নির্বাচিত মেম্বার ইকবালের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়ার জন্য প্রতিবেদন পাঠানো হবে জেলা প্রশাসক স্যারকে। মেম্বারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রমাণিত হলে সদস্য পদ বাতিল হতে পারে বলেও তিনি জানান।

 

 

 

আরো পড়ুন