বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

এবার লেভান্তের কাছে পরাজয় রিয়ালের

প্রকাশিত : ৯:৩৫ পূর্বাহ্ন বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক, দেশবাংলা ডটনেট

একের পর এক হোঁচট খেয়ে পথচলা রিয়ালের কপালে জুটলো আরেকটি হার। লেভান্তের বিপক্ষে শুরুতেই দুই গোল খেয়ে বসা দলটি শেষ দিকে ঘুরে দাঁড়ানোর আভাস দিলেও শেষ পর্যন্ত পারেনি।

সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে শনিবার স্থানীয় সময় দুপুরে শুরু হওয়া লা লিগার ম্যাচে ২-১ গোলে হেরে গেছে হুলেন লোপেতেগির দল।

সব মিলিয়ে শেষ পাঁচ ম্যাচে স্পেনের সফলতম ক্লাবটির এটি চতুর্থ হার। অন্যটি ড্র।

শেষ চার ম্যাচের তিনটিতে হার। এ সময়ে কোনো গোলেও দেখাও পায়নি রিয়াল। এমন কোণঠাসা অবস্থায় খেলতে নামা দলটির শুরুটা হয় বড্ড খারাপ। ১৩ মিনিটের মধ্যেই দুই গোল খেয়ে বসে তারা।

ষষ্ঠ মিনিটে বের্নাবেউকে স্তব্ধ করে দিয়ে এগিয়ে যায় লেভান্তে। ডি-বক্সে বল পেয়ে গোলরক্ষককে কাটিয়ে কোনাকুনি শটে ফাঁকা জালে পাঠান স্প্যানিশ মিডফিল্ডার হোসে লুইস মোরালেস।

ত্রয়োদশ মিনিটে স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড রজের মার্তি। রাফায়েল ভারানের হাতে বল শুরুতে ফ্রি-কিক দিয়েছিলেন রেফারি। কিন্তু ভিডিও অ্যাসিসটেন্ট রেফারি (ভিএআর) প্রযুক্তি ব্যবহার করে পরে স্পট কিকের সিদ্ধান্ত দেন তিনি।

চার মিনিট পর সের্হিও রামোসের হেড ক্রসবারে লাগার পর ফিরতি বল পেয়ে জাল খুঁজে নেন মার্কো আসেনসিও। কিন্তু ভিএআর ব্যবহার করে রামোস হেড নেওয়ার সময়েই আসেসিওর অফসাইডে থাকার অভিযোগে গোল পায়নি রিয়াল।

বিরতির আগে বাকি সময়ে একচেটিয়া রক্ষণে চাপ ধরে রাখে রিয়াল। বেশ কয়েকটি ভালো সুযোগও পেয়েছিল তারা; কিন্তু সাফল্য মেলেনি। ৩৪তম মিনিটে মারিয়ানো দিয়াসের হেড ক্রসবারে লাগার পর ফিরতি বলে কাসেমিরোর হেড কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক।

৪৩তম মিনিটে লুকাস ভাসকেসের শট দারুণ নৈপুণ্যে রুখে দেন লেভান্তে গোলরক্ষক ওলাসাবাল। পরের মিনিটে পাল্টা আক্রমণে আবারও রিয়ালের জালে বল পাঠিয়েছিল অতিথিরা। তবে ভিএআরে দেখা যায়, অফসাইডে ছিলেন ডিফেন্ডার তোনো। ফলে সে যাত্রায় বেঁচে যায় স্বাগতিকরা।

আক্রমণের ধার বাড়াতে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ডিফেন্ডার আলভারো ওদ্রিওসোলাকে বসিয়ে ফরোয়ার্ড গ্যারেথ বেলকে নামান কোচ।

ম্যাচের ঘড়ির কাটা ৫৫ মিনিট ছাড়ালে নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময়ের গোল খরার লজ্জার রেকর্ড গড়ে রিয়াল। ৪৬৪ মিনিট ধরে জালের দেখা পায়নি তারা। আগের রেকর্ডটি হয়েছিল ১৯৮৫ সালে।

৭২তম মিনিটে অবশেষে গোল খরা কাটে রিয়ালের। ডি-বক্সে বাঁ দিকে বল পেয়ে ফরাসি ফরোয়ার্ড বেনজেমা কাটব্যাক করেন মার্সেলোকে। ডান পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।

৭৭তম মিনিটে আবারও ভাগ্যের ফেরে গোলবঞ্চিত হয় রিয়াল। ২০ গজ দূর থেকে বেনজেমার শট পোস্টে বাধা পায়।

৮৯তম মিনিটে কাছ থেকে মারিয়ানো আলতো টোকায় বল জালে পাঠালে ক্ষনিকের জন্য সমতায় ফেরার উচ্ছ্বাসে ভাসে রিয়াল। তবে অফসাইডের বাঁশি বেজে ওঠে। আরেকটি হারের হতাশায় মাঠ ছাড়ে টানা তিনবারের ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা।

নয় ম্যাচে চার জয় ও দুই ড্রয়ে রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ১৪। লেভান্তের পয়েন্ট ১৩।

আরো পড়ুন