বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

লামার কেয়াজু পাড়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় মা-ছেলে আহত, থানায় অভিযোগ দায়ের

প্রকাশিত : ১০:১৪ পূর্বাহ্ন বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

 

বান্দবাবান পার্বত্য জেলার লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নের কেয়াজু পাড়া ৫নং ওয়ার্ডস্হ ধুমসা পাড়া এলাকায় পুর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় মা-ছেলে আহত হয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে।

আহত মহিলার নাম হোসনে আরা বেগম(৪০)। সে ওই এলাকার আবদুল মান্নানের স্ত্রী এবং তার পুত্র নুরুল হুদা(২২)।

গত রবিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

এ ঘটনায় আহত নুরুল হুদা বাদী হয়ে ওই এলাকার কোরবান আলী,কাউচার পারভিন, মোবারক আলী, মুুহাম্মদ রোমানসহ আরও কয়েকজনকে বিবাদী করে লামা থানার আওতাধীন কেয়াজু পাড়া ফাঁড়িতে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আহত হোসনে আরা বেগমের স্বামী আবদুল মান্নান উক্ত প্রতিবেদক কে জানান, আমি দিনমজুর। কষ্ট করে সংসার চালায়। গত রবিবার সন্ধ্যায় আমি বাড়িতে ছিলাম। ওই অবস্হায় আমার বসতঘর দখল করার জন্য প্রতিপক্ষরা পায়তারা চালিয়ে আসছিল। আমার স্ত্রী প্রতিপক্ষদেরকে বাঁধা প্রদান করলে তাকে বাটাম দিয়ে মারধর করে। তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আমার পুত্র নুরুল হুদাকেও মারধর করে। আমার স্ত্রী কেয়াজু পাড়া একজন চিকিৎসকের তত্বাবধানে থাকার পর তার অবস্হা অবনতি দেখা দিলে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলেও তিনি জানান।

তিনি সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের জোর দাবী জানান।

 

 

কেয়াজু পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হাসেম মুঠোফোনে উক্ত প্রতিবেদক কে জানান, মারধরের ঘটনার সত্য। তবে, উভয়পক্ষে আহত হয়েছে । বাড়ি-ভিটে নিয়ে উভয়পক্ষের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। আবদুল মান্নান স্ত্রী ও ছেলে আহত হয়েছে। অন্যদিকে, প্রতিপক্ষ কোরবানীর মা, বোনকে তারা মারধর করে আহত করেছেন। উভয়পক্ষকে ডেকে গন্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে নিয়ে শালিসী বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করে দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

অপরদিকে,অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করতে না পারায় তাদের বক্তব্যে নেওয়া সম্ভব হয়নি।

আরো পড়ুন