মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

লন্ডন থেকে ব্যারিষ্টার ডিগ্রী অর্জন করলেন লোহাগাড়ার সন্তান মোঃ সাইদুল ইমরান!

প্রকাশিত : ১:৩৬ অপরাহ্ন মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

 

রায়হান সিকদার, দেশবাংলাঃ

যুক্তরাজ্যের লন্ডন লিংকনস ইন বিশ্ববিদ্যালয় হতে “ব্যারিষ্টার” ডিগ্রি অর্জন করেছেন লোহাগাড়ার সন্তান মোঃ সাইদুল ইমরান।গত ৭মার্চ বৃহস্পতিবার এই সর্বোচ্চ ব্যারিস্টার ডিগ্রী অর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি। মোঃ সাইদুল ইমরান লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ভবানীপুর এলাকার বাসিন্দা, সৌদি প্রবাসী, সমাজ সেবক, শিক্ষানুরাগী ও ব্যবসায়ী, হাশেম পার্কের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবুল হাশেমের ছোট ছেলে।

মেধাবি ছাত্র সাইদুল ইমরান ঢাকাস্থ ক্যামব্রিয়ান স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি এবং এইচএসসিতে কৃতিত্বের সাথে ফলাফল অর্জন করেন। পরবর্তীতে এলএলবি সম্পন্ন করার পর যুক্তরাজ্যের লিংকনস ইন বিশ্ববিদ্যালয় হতে “ব্যারিষ্টার” ডিগ্রি অর্জন করেন।

ব্যারিষ্টার ডিগ্রী অর্জনপ্রাপ্ত সাইদুল ইমরান মুঠোফোনে তার অনুভূতি প্রকাশ করে জানান,ছোটবেলা থেকেই আমাকে নিয়ে আমার মা, বাবার স্বপ্ন ছিল আমি বড় হয়ে প্রতিষ্ঠিত হই। এই জন্য আমি মন দিয়ে পড়াশোনা করতাম, আর আমার বাবা আমাকে সবসময় সাপোর্ট দিতেন। আমার এই অর্জন আমার দেশের গর্ব। আমার রেজাল্ট নিয়ে আমি গর্ববোধ করি এবং এই অনুভূতি আমার কষ্টের সবকিছু লাঘব করে দিয়েছে। আর মনে হয়েছে আমার বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি। আজ এত দূর এসেছি আমার বাবা,মায়ের ভালবাসা ও দোআ নিয়ে।আমি ব্যারিষ্টার শেষ করার পর এখান থেকে পিএইচডি ডিগ্রী নিয়ে অধ্যায়ন শুরু করছি। আমি দেশবাসী কাছে দোয়া চাই আমার অর্জন আর সাফল্য ধারাবাহিক ভাবে ধরে রাখতে পারি এবং দেশের নাম উজ্জল করতে পারি। এজন্য আমি আমার বাবা সহ আমার আত্মীয় স্বজন সকলের কাছে কৃতজ্ঞ।

গর্বিত সন্তানের গর্বিত বাবা আলহাজ্ব মোঃ আবুল হাসেম জানান,আমার একটা স্বপ্ন ছিল ছেলেকে ব্যারিষ্টার বানাবো,মহান আল্লাহ আমার আশাকে পূরণ করেছে। আমি আমার ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি এবং মানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকতে পারে এই প্রত্যাশা থাকবে। আমার সন্তানের জন্য সকলের কাছে দোআ চাই।

সাইদুল ইমরান যুক্তরাজ্যের লিংকনস ইন বিশ্ববিদ্যালয় হতে ব্যারিষ্টার ডিগ্রী অর্জন করায় অনেকেই তার গর্বিত পিতা আলহাজ্ব মোঃ আবুল হাসেম কে ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।এছাড়াও নিজ জন্মভূমি বড়হাতিয়াসহ লোহাগাড়ার সর্বস্তরের জনসাধারণ তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

আরো পড়ুন