মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

বড়হাতিয়ায় অগ্নিকান্ডে ১৫টি দোকান ও এক বসতঘর পুড়ে ছাই

প্রকাশিত : ১:১৫ অপরাহ্ন মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

 

রায়হান সিকদার,লোহাগাড়া(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া মনু ফকির বাজারে ১৫টি দোকান এবং একই ইউনিয়নে কুমিরাঘোনা হামিদুল্লাহ মুন্সীর পাড়ায় এক বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন যথাক্রমে মোঃ মিজান (মুরগীর দোকান), পরিমল শীল(সেলুন), আমিন (ভাতঘর), কর্মকার(কামার), জসিম(মুরগী দোকান), আবদুর রহিম(গুদাম), শাহ আলম (মুদির দোকান), মফিজুর রহমান(তরকারি দোকান), আমিন(জেনারেটর), খোকন বড়ুয়া(ছুটকি দোকান), নাজিম উদ্দিন(চায়ের দোকান), সিএনজি অফিস, আবদুল হাফেজ (চায়ের দোকান), আমিন শরীফ(জমিদার), ইউসুফ(পান সুপারি দোকান) এবং ক্ষতিগ্রস্ত বসতঘরের মালিক আবদুল হাফেজ।

বড়হাতিয়া মনুফকির বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য সচিব খোকন চন্দ্র দাশ জানান,৫ মার্চ মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে চায়ের দোকান আবদুল হাফেজের দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়ে বলে জানতে পেরেছি। আগুনের লেলিহান শিখায় দাউ দাউ করে মুহুর্তের মধ্যে ১৫টির মত দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ৩২ লাখ ৫০হাজার টাকার মত ব্যবসায়ীদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এলাকার বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ করেন তিনি।

লোহাগাড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মোঃ রুবেল জানান, দোকানে আগুন লাগার ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্ঠা করি। মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে মনুফকির হাটে ১৫টি দোকান পুড়ে গেছে এবং একইদিন ইউনিয়নে কুমিরাঘোনা মোরশেদের বসতঘরে আগুন লাগলে সেটিও নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্ঠা করি।

বড়হাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিজয় কুমার বড়ুয়া জানান,ঘটনাটি সত্যিই দুঃখকজনক।১৫টি দোকান এবং একটি বসতঘরে আগুন লাগার বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেছি। যতটুকু সম্ভব ব্যবসায়ীদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন তিনি। তিনি এলাকার বিত্তবানদের কে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।

আরো পড়ুন