মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

চট্টগ্রাম-১৫ আসনে নির্বাচনী মাঠজুড়ে চলছে গরম হাওয়াঃ দু`হেভিওয়েট প্রার্থী প্রচার- প্রচারণায় সরব

প্রকাশিত : ১২:৩৫ অপরাহ্ন মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

 

রায়হান সিকদার, দেশবাংলাঃ

আগামী ৭ জানুয়ারী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে নির্বাচন কমিশন সুত্রে জানা গেছে। চট্টগ্রাম-১৫ (লোহাগাড়া-সাতকানিয়া) আসনে নির্বাচনের তারিখ যতই ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী মাঠজুড়ে চলছে গরম হাওয়া। চূড়ান্ত লড়াইয়ে নিজেদের স্থান দখলে সরব প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থীরা।ভোটকে সামনে রেখে এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক ও পাড়া-মহল্লায় প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে। মাইকিং, গণসংযোগে মুখরিত পুরো এলাকা জুড়ে।চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার বিভিন্ন এলাকায় বইছে নির্বাচনী হাওয়া। এ আসনে সংসদ সদস্য পদে দু` হেভিওয়েট প্রার্থীর মধ্যে লড়াইয়ের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সঙ্গে লড়াইয়ে কে শেষ হাসি হাসবেন তা বলা যাচ্ছে না এখনই।চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় আসনে জাতীয় সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন ৭জন। তারা হলেন যথাক্রমে চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথা নৌকা প্রতীকের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী প্রফেসর ড.আবু রেজা মুুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঈগল প্রতীকে সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এম এ মোতালেব সিআইপি, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির প্রার্থী (হাত ঘড়ি) অধ্যক্ষ মাওলানা সোলাইমান কাসেমি, জাতীয় পার্টি (জাপা)র প্রার্থী মোঃ ছালেম,বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট এর প্রার্থী আলী হোসেন, ইসলামী ঐক্য এর প্রার্থী মাওলানা মোঃ হারুন, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তি জোট এর প্রার্থী মোঃ জসিম উদ্দিন।৭ জন প্রার্থীর মধ্যে ২জন হেভিওয়েট প্রার্থী। তারা হলেন নৌকার মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী, এ আসনের দুবারের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড.আবু রেজা মুুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী অপরজন স্বতন্ত্র পদে ঈগল প্রতীকের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম.এ মোতালেব সিআইপি।তারা দু`জনে নির্বাচনী এলাকায় প্রচার-প্রচারণা,গনসংযোগে সরব রয়েছে। বাকি ৫জন সংসদ সদস্য প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় দেখা মিলছে খুবই কম।নির্বাচনে শুরুর দিকে চায়ের দোকানে আড্ডা কিংবা চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে যে ভোটাররা আলোচনায় চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছেন, এখন সেই ভোটাররাই তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে আগ্রহ দেখা মিলছে। তাই দিন যত ঘনাচ্ছে নির্বাচনের উত্তাপ তত বেশি ছড়াচ্ছে। সংসদ সদস্য হিসেবে বিজয়ের মালা কে পরবেন তা বলা যাচ্ছেনা এখনই। তবে এবারের নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় উৎসবের আমেজ সৃষ্ঠি হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় বেশ জমজমাট বলছেন ভোটাররা।লোহাগাড়া উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে ভোটারদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, এবার সংসদ সদস্য পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। এবার আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী প্রফেসর ড.আবু রেজা মুুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীর সাথে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম.এ মোতালেব সিআইপির লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।তারা দু’জনই হেভিওয়েট প্রার্থী। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে বলে আশাবাদী ভোটাররা।এদিকে, আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী গণসংযোগ, প্রচার-প্রচারণা ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে দোয়া প্রার্থনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। ভোটারদের মন জয় করতে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা। দিচ্ছেন মডেল সাতকানিয়া-লোহাগাড়া হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি।বাকি প্রার্থীরাও প্রচার-প্রচারণা তুলনামূলক ভাবে কম হলেও তারাও দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি।লোহাগাড়া প্রেস ক্লাব সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম জানান, আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ মোট ৭জন প্রার্থী সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে নির্বাচন করছেন।তাদের মধ্যে নৌকা এবং ঈগল দুজনই হেভিওয়েট প্রার্থী। ভোটারেরা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রয়োগ করবেন।লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রাশেদুল ইসলাম বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা রোধে পুলিশ সতর্ক রয়েছে। আমরা সুন্দর, সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে সবার কাছে সুন্দর পরিবেশ আশা করছি।সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) মুহাম্মদ ইনামুল হাছান জানান, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে আমরা নির্বাচন উপহার দিতে চাই। তবে প্রার্থীদের কে আচরণবিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে। জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল বাশার মুুহাম্মদ ফখরুজ্জামান স্যার প্রার্থীদের সাথে বৈঠক করে আচরণ বিধি মেনে চলার নির্দেশনা দিয়েছেন।

আরো পড়ুন